অপরাধমফস্বল

ধরা ছোয়ার বাইরে আনোয়ারার ইয়াবা সম্রাট সাদ্দাম

বিশেষ প্রতিবেদক

বহুল আলোচিত ইয়াবা কারবারি মাদক মামলার আসামী আত্মগোপনে থেকে নিজের মাছ ধরার ফিশিং ট্রলার ও কার্গো গাড়িতে করে এনে চট্রগামে বিশাল একটি ইয়াবার সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রন করার অভিযোগ উঠেছে চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার মধ্যম গহীরা ৮নং ওয়ার্ডের মোঃ. জাফরের ছেলে সাদ্দাম হোসেনের বিরুদ্ধে।

বর্তমানে সাদ্দাম চট্টগ্রামে আলীশান ফ্ল্যাট বাসা নিয়ে বসবাস করে। গ্রামেও রয়েছে আলীশান বাড়ী। এবং ইয়াবার টাকায় নিজ উপজেলা আনোয়ারা চাতুরী চৌমুহনীতে নিজের নামে দেড় কোটি টাকায় দুইটি জায়গা ক্রয় করেছে। রয়েছে দুইটি মাছ ধরার ফিশিং ট্রলার ও একটি কার্গো গাড়ি। তার ভাই আক্কাস শীর্ষ ডাকাত।

সূত্রে জানা যায়, নিজের দুইটি ফিশিং ট্রলারে করে কক্সবাজার থেকে ইয়াবার বড় বড় চালান নিয়ে আনোয়ারা ও চট্টগ্রামে নিজ হেফাজতে রেখে দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচার করে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে গেছে। এবং নিজের কার্গো গাড়িটিও ইয়াবা বহনের কাজে ব্যাবহার করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অথচ কয়েক বছর আগে নিজেও ইয়াবাসহ কর্ণফুলী থানায় আটক হয়ে এক বছর জেল খেটেছে সাদ্দাম হোসেন।

এলাকাবাসী জানান, সাদ্দাম হোসেনের মাদকের ব্যাবসায় হঠাৎ এত পরিবর্তন ও আলীশান জীবনযাপন তাদেরকে অবাক করে দিয়েছে। মাদকের মামলা ও মাদক ব্যাবসার সম্পৃক্ততা পেয়ে পুলিশ ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার তার বাড়িতে অভিযান চালালেও আত্মগোপনে থাকায় গ্রেফতার করতে পারে নি তাকে। কিছুদিন আগে একাধিক পত্রিকায় সাদ্দাম ও আনোয়ার বেশ কয়েকজনের নামে সংবাদ প্রকাশ হয়েছিলো বলেও জানান তারা।

এলাকাবাসী সূত্রে আরো জানা যায়, কয়েকমাস আগে সাদ্দামের ইয়াবার একটি বড় চালান মহেশখালী থেকে বাশখালী দিয়ে চট্টগ্রাম নিয়ে যাওয়ার পথে তা পার্টনার নিজে নিজে গাড়ি ভেঙ্গে চুরি হয়ে গেছে বলে আত্মসাৎ করে আত্মগোপনে চলে যায়। পরে সাদ্দাম স্থানীয় এক ছাত্র নেতার সাহায্যে তাকে বেধে রেখে প্রচন্ড মারধর করে স্বীকার করিয়ে ইয়াবা ফেরত নেন বলেও জানান তারা। প্রশাসন ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর তালিকায় নাম থাকার পরেও কিভাবে প্রশাসনের নাকের ডগায় মাদকের সম্রাজ্য গড়ে তোলেছে প্রশ্ন এলাকাবাসীর।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আনোয়ারা থানার অফিসার ইনচার্জ এইচ এম দিদারুল ইসলাম সিকদার বলেন, আমরা মাদকের অভিযোগ লিপিবদ্ধ করেছি শীঘ্রই তদন্ত করে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

এই সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button