বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

সন্দেহভাজন অ্যাকাউন্টের তথ্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দিল ‘নগদ’

বিভিন্ন ই-কর্মাস শপে সন্দেহজনক লেনদেন

বাংলাদেশ কন্ঠ প্রতিবেদক :সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন ই-কর্মাস প্ল্যাটর্ফমে সন্দেহজনক লেনদেনের সঙ্গে জড়িত থাকার লক্ষ্মণ পরিলক্ষিত হওয়ায় কিছু অ্যাকাউন্টের তথ্য একাধিক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে হস্তান্তর করেছে ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল র্সাভিস ‘নগদ’। একই সঙ্গে সাময়িকভাবে অ্যাকাউন্টগুলোর লেনদেন স্থগিত করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) বিভাগে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। গত কয়েক দিনে কিছু সংখ্যক ‘নগদ’ গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে হঠা করে বির্তকিত ই-কর্মাস প্রতিষ্ঠানগুলোয় অস্বাভাবিক লেনদেন পরিলক্ষিত হচ্ছিল। এরই পরিপ্রেক্ষিতে অধিকতর র্পযালোচনা ও লেনদেনের ধরণ পরীক্ষা করে কিছু অ্যাকাউন্ট সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে অ্যাকাউন্ট গুলোর তালিকা বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ), বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এবং র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-এর কাছে হস্তান্তর করেছে প্রযুক্তিগতভাবে দেশের সবচেয়ে র্নিভরযোগ্য মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল র্সাভিস ‘নগদ’। এ বিষয়ে ‘নগদ’-এর হেড অব এক্সর্টানাল অ্যাফের্য়াস লেফটেন্যান্ট র্কনেল কাওসার সওকত আলী (অব.) বলেন, সরকারি মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল র্সাভিস অপারেটর ‘নগদ’ প্রযুক্তিগতভাবে দেশের সবচেয়ে র্নিভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান। প্রযুক্তিগত সক্ষমতার কারণে ‘নগদ’-এর প্ল্যাটর্ফমে কোনো ধরনের দুরভিসন্ধীমূলক র্কাযক্রম পরিচালনা করা দুরূহ। তাছাড়া লেনদেনকে ডিজিটাল প্ল্যাটর্ফমে তুলে আনার ফলে অপরাধমূলক র্কাযক্রম নিয়ন্ত্রণ যে অধিকতর সহজ হয়, এই ঘটনা তারই প্রমাণ। ২০১৯ সালের ২৬ র্মাচ উদ্বোধনের পর থেকে ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল
র্সাভিস ‘নগদ’ সাধারণ মানুষের র্আথিক লেন দেনকে ডিজিটাল প্ল্যাটর্ফমে তুলে আনতে কাজ করছে। গত আড়াই বছরে এমএফএস অপা রেটরটি ৫ কোটি ৪০ লাখ গ্রাহক পেয়েছে। একই সঙ্গে দৈনিক লেনদেন ৭০০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গেছে।

এই সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button