সারাদেশ

পুলিশ সুপারের প্রশংসনীয় কর্মকান্ড

ঢাকার অদূরে ৬ টি উপজেলা ও ৭টি থানা নিয়ে ১১৪০.৭৯ বর্গকিলোমিটার আয়তনে গঠিত দেশের ঐতিহ্যবাহী জেলা নরসিংদী ।

মো: তারেক পাঠান, নরসিংদী প্রতিনিধিঃ

ঢাকার অদূরে ৬ টি উপজেলা ও ৭টি থানা নিয়ে ১১৪০.৭৯ বর্গকিলোমিটার আয়তনে গঠিত দেশের ঐতিহ্যবাহী জেলা নরসিংদী । ভৌগলিক অবস্থানের দিক থেকে স্থলপথ, রেলপথ ও নদী পথে দেশের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ জেলার সাথে রয়েছে এ জেলার উন্নততর যোগাযোগ ব্যবস্থা । ফলে এখানে রয়েছে ছোট বড় অসংখ্য শিল্প কারখানা। বিভিন্ন শিল্প কারখানায় কর্মরতদের ধরে এ জেলায় বসবাসরত লোকের সংখ্যা প্রায়ই ২৬ লক্ষ। এমন একটি জনবহুল গুরুত্বপূর্ণ জেলার আইনশৃংখলা পরিস্থিতি সার্বিক নিয়ন্ত্রণ রাখতে জেলা পুলিশের নেতৃত্বে রয়েছেন পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম পিপিএম।

তিনি যোগদানের পর থেকেই জেলার যুবসমাজকে বাঁচাতে মাদকের বিরুদ্ধে রীতিমতো যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন । ফলে জেলার কোথাও না কোথাও প্রায়ই উদ্ধার হচ্ছে মাদকদ্রব্য। আটক হচ্ছে মাদক ব্যবসায়ী-পাঁচারকারী ও মাদকসেবী। এ ছাড়া তার দূরদর্শী নেতৃত্বে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ, ব্যতিক্রমধর্মী ও ক্রিয়েটিভ পদক্ষেপ গ্রহণ করেন, যা জেলা পুলিশের ইমেজকে নতুন মাত্রায় উন্নীত করে। আপরাধ দমনে পুলিশী তৎপরতাকে তিনি হার্ড লাইনে রেখে জেলা পুলিশকে আধুনিক প্রক্রিয়ায় পরিচালনা করছেন। ফলে ক্লুলেস অপরাধের ঘটনাগুলোর রহস্য উন্মোচনে, অপরাধী সনাক্ত, গ্রেফতারে ওনার কৌশল ও নির্দেশনা কার্যকর হতে দেখা যায়। ফলে পাল্টে যায় জেলা পুলিশ নরসিংদীর চিত্র।

এ ছাড়া তিনি যোগদানের পর থেকে জেলার ৬ উপজেলার ৭ টি থানার (ওসি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের নিয়ে প্রায়ই জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয় তদারকি ও গুজব প্রতিরোধ ঠেকাতে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়ে আসছেন। পাশাপাশি ঘুষ ও দুর্নীতি বন্ধে জেলার প্রতিটি থানায় কর্মরত পুলিশ কর্মকর্তাদের কার্যক্রম তিনি নিজেই মনিটরিং করছেন। ফলে পুলিশি হয়রানি থেকে সাধারণ মানুষের অনেটাই মুক্তি মিলেছে। অন্য দিকে তার নির্দেশে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ব্যাপক তৎপড়তা চালাচ্ছে জেলা ট্রাফিক পুলিশ। পুলিশ ভেরিফিকেশন নিয়ে ভীতি ও নেতিবাচক ধারণা জেলাবাসীর মন থেকে একেবারেই দূর করে দিয়েছে তিনি। জেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সন্তোষজনক হওয়ায় কাজের স¦ীকৃতি সরুপ পেয়েছেন ঢাকা রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপারের সম্মাননা।

বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের সাথে কথা বলে জানা যায়, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম তাঁর অফিস কক্ষে নিয়মিত সাধার মানুষের অভিযোগ শুনে থাকেন। এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিনি তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ায় অপরাধীদের উৎসাহে অনেকটাই ভাটা পড়েছে । জেলার আইন-শৃঙ্খলা উন্নতির পেছনে কাজী আশরাফুল আজীমের মত সৎ, দক্ষ, কর্তব্যপরায়ণ ও নির্ভীক পুলিশ সুপারের কর্মকান্ড প্রশংসনীয়। এছাড়া চুরি-ডাকাতি-ছিনতাই,মাদক উদ্ধারসহ আইনশৃঙ্খলা উন্নয়ন করায় পুলিশ এখন জেলাবাসীর কাছে প্রকৃত সেবকে পরিণত হয়েছে। পাশাপাশি পুলিশ সদস্যদের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে। তাঁর এ উদ্যোগ চলমান থাকলে পুলিশের হারানো ভাবমুর্তি যেমন ফিরে আসবে তেমনি জেলাবাসীর জীবনেও সুখের সুবাতাস বইবে বলে জানিয়েছেন জেলার সচেতন ও সামাজিক মহল।

গণকন্ঠ পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম জানান, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম,অত্যন্ত মেধাবী ও গতিশীল নেতৃত্বের অধিকারী। তিনি ভাষা ও মুক্তিযোদ্ধের চেতনা ধারণকারী একজন দেশপ্রেমিক । তিনি মনে করেন, মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজিসহ অপরাধমূলক কর্মকান্ড প্রতিরোধে পুলিশ সুপারের ভূমিকা অত্যন্ত প্রশংসনীয়।

পুলিশ সুপার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীমের নেতৃত্বে ও নির্দেশনায় নরসিংদীতে চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারী হতে আগস্ট মাস পর্যন্ত জেলায় শতাধিক ডাকাত গ্রেফতার হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা, ফেনসিডিল,চোলাইমদ, ক্যান বিয়ার ও গাঁজা । ওয়ারেন্ট ও সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার হয়েছে উল্লেখযোগ্য। ওনার এসব কাজের ধারাবাহিক সাফল্য স্বাক্ষী হয়ে থাকবে নরসিংদীর ইতিহাসে।

এই সম্পর্কিত সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button