হাঁটুন আর হার্ট অ্যাটাক-ক্যান্সারের ঝুঁকি কমান

হাঁটুন আর হার্ট অ্যাটাক-ক্যান্সারের ঝুঁকি কমান

লাইফস্টাইল

নিজস্ব প্রতিনিধি:

বিশ্বব্যাপী হার্ট অ্যাটাক ও ক্যান্সারে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। একই সঙ্গে প্রবীণদের মধ্যে ডিমেনশিয়ার ঝুঁকি বাড়ছে। মূলত ভুল জীবনযাপনের কারণেই এসব রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়। তবে স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া, নিয়মিত ব্যায়াম করা, ধূমপান পরিহার করা এবং ভালো ঘুমের অভ্যাস জটিল রোগের ঝুঁকি কমাতে পারে।

আজকাল প্রায় সবাই ব্যস্ত সময় কাটায়। এই কারণে তাদের বেশিরভাগের শরীরে ব্যায়াম এর অভাব থাকেই, যা বিভিন্ন গুরুতর রোগের ঝুঁকি বাড়ায়। তবে সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে, শুধুমাত্র হাঁটা শরীরের অনেক রোগের ঝুঁকি কমাতে বা প্রতিরোধ করতে পারে। এর মধ্যে হার্ট অ্যাটাক, ক্যান্সার ও ডিমেনশিয়া উল্লেখযোগ্য।

নিয়মিত হাঁটার অনেক উপকারিতা রয়েছে। হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, বিষণ্নতা এবং স্থূলতার ঝুঁকি কমানোর মতো অসংখ্য স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে।

জামা ইন্টারনাল মেডিসিন এবং জামা নিউরোলজি জার্নালে প্রকাশিত একটি নতুন গবেষণা অনুসারে, প্রতিদিন প্রায় ১০,০০০ কদম হাঁটা ডিমেনশিয়ার ঝুঁকি ৫০ শতাংশ কমাতে পারে।

নতুন গবেষণাটি প্রায় ৮০,০০০ ব্যক্তির ফিটনেস ট্র্যাকিং ডেটা দেখেছে। তারা দেখেছেন যে যারা প্রতি মিনিটে পদক্ষেপের সংখ্যা বাড়িয়েছেন তারা প্রতিদিনের হাঁটা থেকে আরও বেশি স্বাস্থ্য সুবিধা পেয়েছেন। তাই নিয়মিত হাঁটার পাশাপাশি গতি বাড়াতেও খেয়াল রাখতে হবে।

সমীক্ষা অনুসারে, যারা প্রতিদিন ৩০ মিনিট ধরে দ্রুত হাঁটেন (প্রতি মিনিটে ৮০-১০০ ধাপ) তাদের হৃদরোগ বা ক্যান্সারের ঝুঁকি ২৫ শতাংশ কম ছিল। একইভাবে, তাদের ডিমেনশিয়ার ঝুঁকি ৩০ শতাংশ কম এবং সর্বজনীন মৃত্যুর ঝুঁকি ৩৫ শতাংশ কম ছিল।

একটানা ৩০ মিনিট উচ্চ গতিতে হাঁটা যাদের পক্ষে কষ্টকর, তারা অল্প ব্যবধানে দ্রুত হাঁটার মাধ্যমে একই সুবিধা পেতে পারেন। আবার ৩০ মিনিট একটানা হাঁটার পরিবর্তে, দিনের বিভিন্ন সময়ে ৫-১০ মিনিট উচ্চ গতিতে হাঁটা একই স্বাস্থ্য উপকারিতা প্রদান করবে।

এছাড়াও, গবেষকরা আরও দেখেছেন যে অংশগ্রহণকারীরা যারা প্রতিদিন গড়ে ৯,৮০০ ধাপ হাঁটেন তারাও সমস্ত স্বাস্থ্য সুবিধা পেয়েছেন।

এমনকি যারা প্রতিদিন ২,০০০ কদম হেঁটেছে তাদের মধ্যেও অকাল মৃত্যু, হৃদরোগ এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি প্রায় ১০ শতাংশ কম ছিল।

এর মানে আপনি যত বেশি হাঁটবেন, তত বেশি সুবিধা পাবেন। যারা প্রতিদিন ১০,০০০ কদম হাঁটেন তাদের গুরুতর রোগের ঝুঁকিও কমবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *