এই প্রথম চাঁদে পা পড়বে কোনো নারীর

এই প্রথম চাঁদে পা পড়বে কোনো নারীর

আন্তর্জাতিক

নিজস্ব প্রতিনিধি:
সোমবার (৩ এপ্রিল) চন্দ্র অভিযান দল ঘোষণা করেছে নাসা। অনেক দিন পর আবার চাঁদে মানুষের পা পড়বে। একই সঙ্গে ঘটতে যাচ্ছে একাধিক ঐতিহাসিক ঘটনা। এই প্রথম কোনো নারী চাঁদে পা রাখবেন। এই প্রথম কোনো কৃষ্ণাঙ্গ চাঁদে যাচ্ছে। এই প্রথম কানাডার নাগরিক যিনি চাঁদে যাবেন।
প্রায় ৫০ বছর পর আবার চাঁদে রাখতে চলেছে মানুষের পা। এর আগে মঙ্গল গ্রহে একাধিক অভিযান হলেও চাঁদে কোনো মানুষ যায়নি। নাসা আগামী বছর চাঁদে যে মিশন তৈরি করছে তার নাম ‘আর্টেমিস টু লুনার মিশন’।

তিনজন নাসার মহাকাশচারী মিশনে যোগ দেবেন। তারা সবাই দীর্ঘদিন ধরে আন্তর্জাতিক মহাকাশ গবেষণাগারে কাজ করেছেন। মহাকাশ গবেষণাগারে সবচেয়ে বেশি সময় কাটিয়েছেন সেই নারী যিনি চাঁদে পা রাখতে যাচ্ছেন। সব মিলিয়ে তিনি ১১ মাস সেখানে ছিলেন।
প্রকৃতপক্ষে, সর্বশেষ মহাকাশচারী চাঁদে অবতরণ করেছিলেন ১৯৭২ সালে। সেই ঐতিহাসিক চন্দ্র অভিযানের নাম ছিল ‘অ্যাপোলো এক্সপ্লোরেশন’। চাঁদে পৌঁছানোর পর, মহাকাশচারীরা প্রথমে এর কক্ষপথ অন্বেষণ করবে। তারপর তারা চাঁদে পা রাখবে।

প্রকৃতপক্ষে, এর পরেই নাসার আরেকটি চন্দ্র অভিযানের পরিকল্পনা রয়েছে। তবে এখনও বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। নাসার মতে, এটি একটি ঐতিহাসিক মিশন হতে চলেছে। এরপর থেকে যারা চাঁদে যেতে চেয়েছিলেন তারা আর্টেমিস প্রজন্ম হিসেবে চিহ্নিত হবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *